জম্মু ও কাশ্মীরের বাড়িগুলিতে সোনার ছাদ থাকতো…”: বললেন অমিত শাহ

জম্মু ও কাশ্মীরের বাড়িগুলিতে সোনার ছাদ থাকতো…”: বললেন অমিত শাহ

মুম্বই: জম্মু ও কাশ্মীরের (Jammu and Kashmir) লোকেদের “সোনার ছাদযুক্ত বাড়ি” থাকত যদি বিগত সরকারগুলি এই অঞ্চলের উন্নয়নের জন্য কেন্দ্রের দেওয়া অর্থ ব্যয় করত, বললেন বিজেপি সভাপতি এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Amit Shah)। অমিত শাহ বলেন যে জম্মু ও কাশ্মীর থেকে সংবিধানের ৩৭০ ধারা রদ করে এই রাজ্যের বিশেষ মর্যাদাকে বাতিল করার বিষয়ে কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের ফলে এই অঞ্চলের অগ্রগতি হবে। অমিত শাহ বলেন, “ভারত সরকার জম্মু-কাশ্মীর গঠনের পর থেকে ২.২৭ লক্ষ কোটি টাকা ব্যয় করেছে এর উন্নয়নের জন্যে। এই অর্থ যদি সত্যিই মানুষের কাছে যেত তবে তাঁদের বাড়িতে সোনার তৈরি ছাদ থাকত” । বিজেপি সভাপতি আরও বলেন যে, ৩৭০ ধারা, যা জম্মু ও কাশ্মীরকে বিশেষ মর্যাদা দিয়েছিল, সেটির কারণেই সরকারগুলি দুর্নীতি দমন ব্যুরো প্রতিষ্ঠা করতে দেয়নি, কারও কারও পক্ষে এখানকার উন্নয়নের জন্য যে কেন্দ্রের তরফ থেকে যে অর্থ প্রেরণ করা হয়েছিল তা “লুট” করা সহজ হয়েছিল।
“কংগ্রেস রাজনীতি দেখছে, আমরা দেশপ্রেম দেখছি”: কাশ্মীর প্রসঙ্গে অমিত শাহ

“জম্মু ও কাশ্মীরের পূর্ববর্তী সরকারগুলি দুর্নীতি দমন আইনের প্রয়োগ করতে দেয়নি। দুর্নীতি দমন ব্যুরোও ছিল না। জনগণের জন্য অর্থ রীতিমতো লুট করা হয়েছিল” বলেন তিনি।

অমিত শাহ আরও যোগ করেন, “৩৭০ অনুচ্ছেদ জম্মু ও কাশ্মীরের সংস্কৃতি রক্ষার জন্য ছিল না। এটি আসলে সেখানকার (রাজনৈতিক নেতাদের) দুর্নীতি রক্ষার জন্য ছিল”।

অমিত শাহ একথাও বলেন যে, জওহরলাল নেহেরু জম্মু ও কাশ্মীরে বিশেষ মর্যাদা দিয়েছিলেন, এবং তারপর থেকেই উপত্যকায় সন্ত্রাসবাদ বাড়তে থাকে। তাঁর কথায়, “৪০ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে, এবং কাশ্মীরী পণ্ডিত, সুফি, এবং শিখদের, ১৯৯০ থেকে ২০০০ –এই ১০ বছরে তাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে”।

বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি তথা কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, “রাহুল গান্ধি বলেন, ৩৭০ ধারা একটি রাজনৈতিক ইস্যু। রাহুল বাবা, আপনি এখন রাজনীতিতে এসেছেন, কিন্তু ৩৭০ ধারা বিলুপ্তির জন্য, কাশ্মীরে তিন প্রজন্ম ধরে জীবন দিয়েছে বিজেপি। আমাদের কাছে এটা রাজনৈতিক ইস্যু নয়। ভারত মাকে অখণ্ড রাখতে এটা আমাদের লক্ষ্য”।

তাঁদের আকাশসীমায় ঢুকতে দেবেন না প্রধানমন্ত্রী মোদিকে, বললেন পাক বিদেশমন্ত্রী

নয়াদিল্লি: আমেরিকা যাওয়ার সময়, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিমানকে তাঁদের আকাশসীমা দিয়ে যেতে দেবেন না, বুধবার পাকিস্তানের (Pakistan) বিদেশমন্ত্রী শাহ মহম্মদ কুরেশিকে (Shah Mehmood Qureshi) উদ্ধৃত করে জানিয়েছে সংবাদসংস্থা এএনআই। ২১ সেপ্টেম্বর এক সপ্তাহের আমেরিকা সফরে যাবেন প্রধানমন্ত্রী মোদি। ২৬ ফেব্রুয়ারি বালাকোটে জইশ-ই-মহম্মদের জঙ্গিঘাঁটিতে ভারতের বিমান হানার পরেই, ভারতের জন্য তাদের আকাশসীমা বন্ধ করে দেয় পাকিস্তান। তবে জুলাইয়ে আবার তা আংশিকভাবে খুলে যায়। একদিন পরেই, তাদের বিমানমন্ত্রী বলেন, আকাশসীমা বন্ধ রাখায় তাঁদের ৮ বিলিয়ন ডলারেরও বেশী অর্থের ক্ষতি হয়েছে, এমনটাই জানায় সংবাদসংস্থা রয়টার্স।
জম্মু ও কাশ্মীর নিয়ে ভারতকে সমর্থন ইউরোপের সাংসদদের, বললেন “বৃহত্তম গণতন্ত্র”

২৮ অগস্ট থেকে ৩১ অগস্ট, করাচি আকাশসীমার তিনটি বিমানরুট বন্ধ করে দেয় পাকিস্তান। পাকিস্তান ঘোষণা করে, তাদের আকাশসীমায় ভারতের বিমান নিষিদ্ধ করার ভাবনাচিন্তা করছে তারা। তবে তাদের আকাশসীমা বন্ধ করায় ভারতের বিমান পরিষেবায় ব্যাঘাত ঘটেনি। আগের মাসে, আইসল্যান্ড যাওয়ার সময়, রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের বিমান যাওয়ার অনুমতি দেয়নি পাকিস্তান।

এবছর ২,০০০-এরও বেশিবার যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন পাকিস্তানের, নিন্দায় সরব ভারত

জম্মু ও কাশ্মীর থেকে বিশেষ রাজ্যের মর্যাদা প্রত্যাহার এবং রাজ্যটিকে ভেঙে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পরিণত করার ভারতের পদক্ষেপের প্রসঙ্গ টেনে শাহ মহম্মদ কুরেশি বলেন, এই সিদ্ধান্ত “ভারতের সাম্প্রতিক ব্যবহারের জন্য”।

বউ কেন বাপের বাড়িতে! রেগে শালীর ছেলেকে কোপাল উন্মত্ত স্বামী!

নাগপুর: পারিবারিক হিংসার বলি একমাসের শিশু! এই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে মহারাষ্ট্রের (Maharashtra) নাগপুর জেলায় (Nagpur district)। পারিবারিক বাদানুবাদ থেকে হাতাহাতি আর তার জের ধরেই নিজের এক মাস বয়সী ভাইপোকে হত্যা করল এক ব্যক্তি! বুধবার পুলিশ জানিয়েছে, হত্যাকারী অভিযুক্ত গণেশ বোরকারকে (৪১) গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
সোমবার পারসেওনি গ্রামে গণেশ বোরকারের (Ganesh Borkar) শ্বশুরবাড়ির বাড়িতে এই ঘটনাটি ঘটে। পারসেওনি থানার এক আধিকারিক জানিয়েছেন, গণেশের সঙ্গে তাঁর স্ত্রীর প্রায়শই ঝগড়া-বিবাদ লেগেই থাকত। সম্প্রতি ঝগড়া করে বাড়ি ছেড়ে বাপের বাড়ি চলে আসেন তাঁর স্ত্রী। এই ঘটনার পরেই বেশ ভেঙে পড়েছিলেন গণেশ।

“আমার বাবার চোখ উধাও”:মর্গে অভিযোগ জানালেন কলকাতার এক ব্যক্তি

সোমবার, গণেশ তাঁর শ্বশুরবাড়িতে যান। সেখানে তাঁর স্ত্রীর ছোট বোন রূপালী পান্ডে এবং রূপালীর এক মাসের শিশুও বেড়াতে এসেছিলেন। তিনি তাঁর শালীর কাছে তাঁর স্ত্রীর বিষয়ে খোঁজখবর নেন। সূত্রের খবর, তাঁর স্ত্রী সেই সময় বাড়িতে উপস্থিত ছিলেন না।

তিনি রূপালীকে জিজ্ঞাসা করেন কেন তাঁরা তাঁর স্ত্রীকে ওই বাড়িতে ফেরত পাঠাচ্ছেন না। এই কথোপকথনের মধ্যেই উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হাতাহাতির পর্যায়ে চলে যায়। পুলিশ জানিয়েছে, রূপালীর ছেলে তখন বিছানায় শুয়ে ঘুমোচ্ছিল। অভিযুক্ত গণেশ তাঁকে ছুরি দিয়ে কোপায় এবং ঘটনাস্থল ছেড়ে পালিয়ে যায়।

৪৫০-৫০০ জঙ্গি রয়েছে জঙ্গিদের লঞ্চপ্যাডে, খবর সেনা সূত্রে

নয়াদিল্লি: নিয়ন্ত্রণরেখা সংলগ্ন এলাকায় লঞ্চপ্যাডে প্রায় ৫০০ জন জঙ্গি রয়েছে, গত তিনবছরের থেকে এই সংখ্যাটা দ্বিগুণ…ভারতে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করছে তারা, এবং তাদের “সর্বস্তরে, যেকোনও দূরত্বে, যেকোনও জায়গায় জবাব দিতে প্রস্তুত সেনাবাহিনী”, সোমবার এমনটাই জানা গিয়েছে সেনা সূত্রে। এদিন সকালে সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াত বলেন, পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলায় ৪০ জন সেনা জওয়ানের মৃত্যুর পরে, ফেব্রুয়ারিতে বালাকোটে ভারতের বিমান হানার পর, সেখানকার জঙ্গি ঘাঁটিগুলিকে “আবারও সক্রিয়” করে তুলেছে পাকিস্তান। সেনাপ্রধান আরও বলেন, নিয়ন্ত্রণরেখা এলাকায় সক্রিয় জঙ্গিঘাঁটিগুলি এবং ভারতে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করছে প্রায় ৫০০ জঙ্গি।
সূত্রের খবর, দিন চারেক আগে, বালাকোটের ঘাঁটি পুনরায় সক্রিয় হয়ে ওঠার খবর পাওয়া যায়। সূত্রের খবর, হুমকির ধরণ, “অন্যান্য বছরের তুলনায় এবারে উৎসবের মরশুমে অনেকবেশী গুরুত্বপূর্ণ”।

বালাকোটে ফের সক্রিয় হচ্ছে জঙ্গি শিবিরগুলি, বললেন সেনাপ্রধান বিপীন রাওয়াত

মনে করা হচ্ছে যে, প্রায় ৬০ জন জঙ্গি, গতদুমাসের বেশী সময়ে, আন্তর্জাতিক সীমান্ত এবং নিয়ন্ত্রণরেখা পার করেছে। জঙ্গিদের জন্য প্রায় চার থেকে পাঁচটি লঞ্চপ্যাড তৈরি বলে মনে করা হচ্ছে।

NDTV কে সেনা সূত্র জানিয়েছে, “আমাদের প্রত্যুত্তর হবে, যে কোনও স্তরে, যে কোনও দূরত্বে, যে কোনও জায়গায়। উপযুক্ত পরিকল্পনা প্রস্তুত রয়েছে”। সূত্র মারফৎ আরও জানা গিয়েছে, “শ্রীনগরের ১৫ কোম্পানি বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে, শুধুমাত্র প্রতিরক্ষার জন্য নয়”।

চার থেকে পাঁচটি জঙ্গি লঞ্চ প্যাড তাদের জন্য প্রস্তুত রয়েছে। বেড়ে চলা কার্যকলাপ, সূত্রের খবর, ৫ অগস্ট জম্মু ও কাশ্মীর থেকে বিশেষ রাজ্যের মর্যাদা প্রত্যাহার করা নিয়ে পদক্ষেপে পাকিস্তানের ক্ষোভ থেকে তৈরি হয়েছে।

সূত্র মারফৎ জানা গিয়েছে, সব জায়গাতেই প্রয়োজনীয় সেনা মোতায়েন করা হয়েছে।

পাকিস্তান আমাদের ক্ষমতা জানে, তবু বারবার অবহেলা করে: এয়ার চিফ মার্শাল

সেনা সূত্রে খবর, “নভেম্বর থেকে জঙ্গিদের অনুপ্রবেশ কিছু কিছু সেক্টরের ওপর নির্ভর করে শুরু হয়—যেমন গুরেজ, কার্গিল, কেরান, তাংদার, উরি, তুষারপাতের ওপর নির্ভর করে এবং অন্যদিক দিয়ে অনুপ্রবেশ শুরু হয়”।

সোমবার সকালে চেন্নাইয়ে কথা বলার সময়, বালাকোটের জঙ্গি ঘাঁটি “আবারও সক্রিয়” হওয়ায় জবাব, ২৬ ফেব্রুয়ারি ভারতীয় বায়ুসেনার হামলার মতো নেওয়া হবে কিনা। সেবার পাকিস্তানের অনেক ভিতরে ঢুকে নিয়ে জঙ্গি ঘাঁটিতে বোমা নিক্ষেপ করেছিল ভারতীয় বায়ুসেনা।

পাকিস্তানকে বিশ্বাস করি, কাশ্মীর নিয়ে মধ্যস্থতা করতে পারি”, ইমরানের সঙ্গে বৈঠকে বললেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

নিউইয়র্ক: পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে বৈঠকে, ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে ফের মধ্যস্থতা করার প্রস্তাব দিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প (Donald Trump)। ইমরান খানের (Imran Khan) সঙ্গে বৈঠকের শুরুতে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, যদি ইমরান খান এবং প্রধানমন্ত্রী মোদি, কাশ্মীর (Jammu and Kashmir) নিয়ে তাঁর মধ্যস্থতা চান, তাহলে তিনি তা করতে ইচ্ছুক। “উগ্র ইসলামিক সন্ত্রাসবাদ মুক্ত করার জন্য” আমেরিকার সংকল্পের উপর জোর দিয়ে এই নিয়ে তৃতীয়বার মধ্যস্থতা করার ইচ্ছা প্রকাশ করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। তিনি মধ্যস্থতায় রাজি কিনা, সে প্রশ্নের উত্তরে ট্রাম্প বলেন, “আমি প্রস্তুত, ইচ্ছুক এবং সক্ষম। এটা একটা জটিল বিষয়। এটা দীর্ঘদিন ধরে চলছে। তবে যদি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং ইমরান খান উভয়েই চান, তাহলে আমি তা করতে রাজি আছি”। তিনি বলেন, “আমি মনে করি, আমি একজন ভাল মধ্যস্থতাকারী হব”।
“আমেরিকা ভারতকে ভালবাসে”: হাউডি মোদির পর টুইট করলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

এর আগেও ইমরান খানের সঙ্গে বৈঠককালে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ইসলামাবাদ ও নয়াদিল্লির মধ্যে মধ্যস্থতার কথা বলেছিলেন। কিন্তু ভারত জম্মু ও কাশ্মীর দ্বিপাক্ষিক ইস্যু এই কথা বলে ওই প্রস্তাবে দৃঢ়ভাবে “না” বলে দেয়।

রবিবার হাউস্টনে বক্তব্য রাখার সময় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি পাকিস্তানকে নিশানা করেন। নাম না করে তিনি বলেন একটি দেশ রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ অধিবেশনে অংশ নিচ্ছে এবং সেখানে কাশ্মীর উত্থাপন করবে বলে আশা করা হচ্ছে, অথচ “তাঁরা ক্রমাগত সন্ত্রাসবাদকে সমর্থন করে চলেছে, তাঁরা সন্ত্রাসবাদীদের আশ্রয় দিচ্ছে”।

তিনি আরও বলেন, “আমেরিকার ৯/১১ বা মুম্বইয়ের ২৬/১১, যেটার কথাই বলুন না কেন, হামলার সঙ্গে ষড়যন্ত্রকারীদের কোথায় পাওয়া যায়? কেবল আপনি নন, গোটা বিশ্বই জানেন যে এরা কারা” ।

৪৫০-৫০০ জঙ্গি রয়েছে জঙ্গিদের লঞ্চপ্যাডে, খবর সেনা সূত্রে

নরেন্দ্র মোদির ওই বক্তব্যের পরেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প নিরীহ অসামরিক নাগরিকদেরকে উগ্র ইসলামী সন্ত্রাসবাদের হুমকি এবং সীমান্ত সুরক্ষা কার্যকর করার হুমকি থেকে রক্ষা করার প্রতিশ্রুতি দেন।

COMMENT
তবে পাকিস্তান সন্ত্রাসবাদীদের একটি ঘাঁটি, ভারতের এই সিদ্ধান্তের সঙ্গে তিনি একমত কিনা তা জানতে চাওয়া হলে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, “এক্ষেত্রে আমি ইরানের দিকে আরও অনেক বেশি ইঙ্গিত করছি”। রবিবার হিউস্টনে পাকিস্তানের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী মোদির মন্তব্যকে অত্যন্ত আক্রমণাত্মক বলে মন্তব্য করে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন যে এই অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়া ৫০,০০০ প্রবাসী ভারতীয় মোদির এই বক্তব্যের তারিফ করেছেন।

বালাকোটে ফের সক্রিয় হচ্ছে জঙ্গি শিবিরগুলি, বললেন সেনাপ্রধান বিপীন রাওয়াত

বালাকোটে ফের সক্রিয় হচ্ছে জঙ্গি শিবিরগুলি, বললেন সেনাপ্রধান বিপীন রাওয়াত। এর আগে ফেব্রয়ারিতে ভারতীয় বায়ুসেনার বিমান বালাকোটে (Balakot) বোমাবর্ষণ করে ধ্বংস করে জয়েশ-ই-মহম্মদ জঙ্গি গোষ্ঠীর (Jaish-e-Mohammed) বেশ কিছু শিবির। জেনারেল রাওয়াত (Bipin Rawat) বলেন, “বালাকোটকে পাকিস্তান আবারও সক্রিয় করে তুলেছে। এই ঘটনাই প্রমাণ করে যে বালাকোট ভারতীয় বায়ুসেনার বিমানহানায় সেইসময় ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছিল, এই ঘটনা এই বাস্তবও তুলে ধরে যে বালাকোটে ভারতীয় বিমানবাহিনী কিছু পদক্ষেপ করেছিল কিন্তু এখন ওই জঙ্গিরা আবার সেখানে ফিরে এসেছে”। এর আগে একটি সংবাদপত্রের পক্ষ থেকে দাবি করা হয় যে বালাকোটে ফের সক্রিয় হচ্ছে জঙ্গি শিবিরগুলি। এরপরেই ভারতের সেনাপ্রধান এই মন্তব্য করেন।
সরকারি সূত্রগুলি এনডিটিভিকে জানিয়েছে যে প্রায় ১২৯ জন জইশ জঙ্গি ভারতে অনুপ্রবেশের জন্য এবং ইসরায়েলের তৈরি লেজার-গাইড বোমা দিয়ে আঘাত করার জন্যে প্রস্তুতি নিচ্ছে ও সুযোগের অপেক্ষায় ওই শিবিরগুলিতে আত্মগোপন করে আছে।

২৬ ফেব্রুয়ারি, ভারতীয় বিমান বাহিনী ফ্রান্স থেকে কেনা এক ডজন মিরাজ ২০০০ বিমান নিয়ে পাকিস্তানের অভ্যন্তরে প্রবেশ করে এবং জঙ্গি গোষ্ঠী জইশ-ই-মহম্মদ শিবিরগুলিকে বোমা মেরে ধ্বংস করে। তার আগে ভারতের পুলওয়ামায় একটি আত্মঘাতী জঙ্গি হামলা চালানো হয় জঙ্গিদের তরফে। জম্মু ও কাশ্মীরের পুলওয়ামায় হওয়া ওই হামলায় আধাসামরিক বাহিনীর (সিআরপিএফ) ৪০ জন সেনা জওয়ান শহিদ হন ।

এই ঘটনা তখনই প্রকাশ্যে এল যখন আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ অধিবেশন (ইউএনজিএ)-এ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের উদ্দেশ্যে ভাষণ দেবেন। আবার মোদির ভাষণের পরেই পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সেখানে ভাষণ দেওয়ার কথা। যেখানে ইমরান খান আগেই জানিয়েছেন জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদাকে বাতিল করতে নেওয়া ভারতের পদক্ষেপের প্রসঙ্গ তুলবেন তিনি। মোদি সরকার অগাস্টের প্রথমেই জানায় যে জম্মু ও কাশ্মীর থেকে সংবিধানের ৩৭০ ধারা রদ করে রাজ্যটিকে জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখ, দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করবে।

বালাকোটে ধ্বংস হওয়া জঙ্গি শিবিরগুলিকে পুনরায় উজ্জিবীত করতে সক্রিয় প্রতিবেশি দেশ পাকিস্তান। অথচ পাকিস্তানের মাটিতে কোনও জঙ্গিগোষ্ঠীকে আশ্রয় না দেওয়ার বিষয়ে আন্তর্জাতিক স্তরের কাছে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ ওই দেশ। তা সত্ত্বেও তলে তলে জঙ্গিদের মদত দিয়েই চলেছে ইমরানের দেশ এমনটাই বারবার অভিযোগ করেছে ভারত।

ইতিমধ্যেই পাকিস্তানকে বিশ্ব সন্ত্রাস ফিনান্স ওয়াচডগ ফিনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স (এফএটিএফ) তাদের “বর্ধিত কালো তালিকাভুক্ত” করেছে। পাকিস্তানকে এফএটিএফের ২৭-দফা কর্ম পরিকল্পনায় সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে কাজ করার জন্য ১৫ মাসের সময়সীমা দেওয়া হয়, যার মধ্যে জঙ্গিদের গ্রেফতার করা এবং তাদের তহবিলের জোগান বন্ধ করাও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে, আর এই সময়সীমা আগামী অক্টোবরেই শেষ হবে।

এফএটিএফ-এর লক্ষ্যমাত্রা পূরণ না করলে পাকিস্তানকে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল, বিশ্বব্যাংক এবং এশীয় উন্নয়ন ব্যাঙ্কের কাছে ডাউনগ্রেড করার পাশাপাশি মুডিজ, স্ট্যান্ডার্ড অ্যান্ড পুয়ারস এবং ফিচের মতো ক্রেডিট রেটিং এজেন্সিগুলির কাছেও নেতিবাচক মূল্যায়নের মুখোমুখি হবে। এটি পাকিস্তানের আর্থিক বোঝা আরও বাড়িয়ে তুলবে। কেননা পাকিস্তানের অর্থনৈতিক মন্দা কাটিয়ে উঠতে সমস্ত সম্ভাব্য আন্তর্জাতিক উত্স থেকে সহায়তা প্রয়োজন সে দেশের।

“বিড়ম্বনা”: মোদির ৩৭০ ধারা নিয়ে মন্তব্যের বিষয়ে বললেন মুফতি কন্যা

শ্রীনগর: রবিবার প্রধানমন্ত্রী মোদি “হাউডি মোদি” (Howdy Modi) অনুষ্ঠানেও উঠে আসে জম্মু ও কাশ্মীর প্রসঙ্গ। রবিবার হিউস্টনে যখন মোদি (Natrendra Modi) জানান যে জম্মু ও কাশ্মীর থেকে সংবিধানের ৩৭০ ধারা রদ করে সেখানকার বিশেষ মর্যাদা সমাপ্ত করার মতো ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত, তখন অনুষ্ঠানে উপস্থিত প্রবাসী ভারতীয়রা সহ অন্যান্য অতিথি অভ্যাগতরা উঠে দাঁড়িয়ে করতালি দেন। তবে এরপরেই জম্মু ও কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতির টুইটার হ্যান্ডেল থেকে একটি পোস্ট করেন তাঁর কন্যা ইলতিজা। প্রায় ৫০ দিন ধরে আটক রয়েছেন জম্মু ও কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি। সেই প্রসঙ্গেই মুফতি কন্যা বলেন, কাশ্মীর নিয়ে কেন্দ্রের এই পদক্ষেপ আসলে “বিড়ম্বনা” ছাড়া আর কিছুই নয়।
“জন্তুর মতো খাঁচাবন্দি”: অমিত শাহকে চিঠি লিখলেন মেহবুবা মুফতির মেয়ে

“বিড়ম্বনা এই জন্যে যে জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ স্বার্থরক্ষার জন্য বাহ্যিকভাবে গৃহীত একটি পদক্ষেপে রাজ্যের মানুষের উপকার বাদে আর সবকিছুই হচ্ছে। কাশ্মীরের লোকেরা যখন এই বিষয়ে কথা বলতে যাচ্ছে তখন তাঁদের চুুপ করিয়ে দেওয়া হচ্ছে, অথচ এই সিদ্ধান্তকে ন্যায্য প্রমাণ করার জন্য গণ হিস্টিরিয়া মত অন্যত্র এই নিয়ে প্রচার করা হচ্ছে,” মেহবুবা মুফতির অ্যাকাউন্ট থেকে এই টুইট করা হয়, এই অ্যাকাউন্টটি এখন তাঁর মেয়ে ইলতিজা “যথাযথ অনুমোদন” নিয়ে নিয়ন্ত্রণ করছে।

রবিবার হিউস্টনে হাউডি মোদি অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী মোদি শ্রোতাদের উদ্দেশে উচ্চস্বরে বলেন, “আমরা ৭০ বছর ধরে দেশের কাছে একটি বড় চ্যালেঞ্জ হিসাবে থাকা একটি জিনিসকে বিদায় জানালাম … (সংবিধানের) অনুচ্ছেদ ৩৭০ … এই ৩৭০ ধারা জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখের মানুষকে তাঁদের উন্নয়ন ও অধিকার থেকে বঞ্চিত করে আসছিল এতদিন ধরে। সন্ত্রাসবাদী ও বিচ্ছিন্নতাবাদীরা নিজেদের সুবিধার্থে এটির ব্যবহার করছিল। এখন আমরা বলতে পারি জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখের প্রতিটি মানুষের অন্য ভারতীয়দের মতোই সমান অধিকার রয়েছে।”

মেহবুবা মুফতির মেয়েকে তাঁর মায়ের সঙ্গে দেখা করার অনুমতি দিল শীর্ষ আদালত

COMMENT
অগাস্টের প্রথম দিকে, কেন্দ্র জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা সমাপ্ত করে বলেছিল যে এই পদক্ষেপটি রাজ্যের মানুষদের দেশের অন্যান্য মানুষের মতোই সাংবিধানিক সুবিধা পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করতে সহায়তা করবে। তবে কেন্দ্রীয় সরকারের সিদ্ধান্ত নিয়ে কোনও ঝামেলা বা বিক্ষোভ রোধ করার লক্ষ্যে কয়েকশ অন্যান্য রাজনীতিকের সঙ্গে মেহবুবা মুফতিকেও গ্রেফতার করে রাখা হয়েছে।

ফোনে কথা বলতে বলতে সঙ্গমরত সাপের উপর বসে পড়লেন মহিলা, জোড়া ছোবলে মৃত্যু

গোরখপুর: গেরস্থের বাড়িতে ঢুকে বিছানার চাদরে মিশে বসেছিল দুই খানা বিষাক্ত সাপ। আসলে ঠিক বসেছিল না, শঙ্খলাগা অবস্থায় ছিল সাপ যুগল। ফোনে কথা বলতে বলতে একটুও খেয়াল না করে শঙ্খলাগা সাপের অপরেই বসে পড়েন এক মহিলা! একজোড়া সাপের কামড়ে কয়েক মিনিটের মধ্যেই প্রাণ গেল ওই গৃহবধূর। বুধবার গোরক্ষপুরের রিয়ানভ গ্রামে এই অদ্ভুত ঘটনাটি ঘটেছে।
সাপের কামড় খেয়ে পাল্টা সাপকে কামড়ে টুকরো টুকরো করে ফেললেন মাতাল ব্যক্তি

থাইল্যান্ডে কর্মরত জয় সিং যাদবের স্ত্রী গীতা স্বামীর সঙ্গেই ফোনে কথা বলছিলেন। ফোনে কথা বলতে বলতে তিনি খেয়ালই করেননি কখন একজোড়া সাপ ঘরে ঢুকে পড়েছে তাঁদের। গীতাদেবীর বাড়িতে যে বিছানা পাতা তাতে একটি প্রিন্টেড চাদর পাতা ছিল। ওই চাদরের উপরেই উঠে পড়ে ২ টি সাপ।

ফোনে কথা বলতে বলতেই নিজের ঘরে ঢোকেন গীতা। ছাপা চাদরে মিশে থাকায় বিছানায় যে আসলে ২ খানা সাপ বসে আছে তা টেরও পাননি গীতা। কথা বলতে বলতেই বিছানায় সাপের উপরেই বসে পড়েন তিনি। সাপগুলির অব্যর্থ ছোবলে কয়েক মিনিটের মধ্যেই অজ্ঞান হয়ে পড়ে যান গীতা।

কাঠবিড়ালি কাঠবিড়ালি, সাপ তুমি খাও? দেখুন কাঠবিড়ালির সাপ কামড়ানোর বিরল ভিডিও

পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা তাকে দ্রুত স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসা চলতে চলতেই তার মৃত্যু হয়। পরিবারের সদস্যরা এবং প্রতিবেশীরা গীতার ঘরে ফিরে এলে বিছানায় সাপ দু’টিকে দেখতে পান। ক্ষুব্ধ প্রতিবেশীরা সাপ দু’টিকে পিটিয়ে মেরে ফেলে।

COMMENT
ভেটেরিনারি বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, গীতা যখন বুঝতে না পেরে সাপের উপরে বসে পড়েন সেই সময় আসলে সাপগুলি সঙ্গমরত অবস্থায় ছিল।

Hello world!

Welcome to WordPress. This is your first post. Edit or delete it, then start writing!